Header Ads

Image and video hosting by TinyPic

Breaking News

প্রতিবন্ধী চরিত্রে অভিনয় করতে চাই- মিমি

নর্থ বেঙ্গলের একজন সাধারণ মেয়ে থেকে কলকাতার একজন ব্যস্ততম অভিনেত্রী। চড়াই উতরাই পার করে আজ প্রথম সারির পরিচালকদের প্রথম পছন্দ তিনি। ফিল্মি ব্যাকগ্রাউন্ড থেকে আসেননি, তাই জার্নিটা খুব একটা সহজ ছিল না। পছন্দ, অপছন্দ, অভিনয়, ব্যক্তিগত জীবন সব নিয়ে Kolkata GlitZ-এর সামনে খোলাখুলি আড্ডায় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। শুনলেন সুমি মিত্র



 অভিনয় জগতে কিভাবে এলে ?
মিমি - ধীরে ধীরেই হয়েছে কলেজে থাকার সময় থেকেই মডেলিং করতাম ফেমিনা মিস ইন্ডিয়ায় পার্টিসিপেট করেছিলাম সেখান থেকেই সুযোগ আসলো

 প্রথম ব্রেক কিভাবে পেলে ?
মিমি- আমার প্রথম সিরিয়াল চ্যাম্পিয়ন সেটা খুব বেশি দিন চলেনি তারপর সুদেষ্ণা দি রানা দা আমায় গানের ওপারের অডিশনের জন্য ডাকে সেখানে গিয়েই আমার ঋতু দা আর বুম্বা দার সঙ্গে দেখা হয়

 ফিল্মি ব্যাকগ্রাউন্ড না থাকায় বাড়ি থেকে কি কোনো আপত্তি হয়েছিল ?
মিমি- হ্যা তা হয়েছিল অভিনয়ের শুরুর দিকে বাড়িতে কেউই রাজি ছিল না কারণ আমার বাড়িতে বেশিরভাগই প্রফেসর সবাই পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত বাইরে গিয়ে রিসার্চ করছে  তাই কেউ চায়নি আমি অভিনয় করি বাবা আমার সঙ্গে এক বছর কোনো কথা বলেনি তবে গানের ওপারের সাফল্যের পর তারা অনেকটাই মেনে নিয়েছিল তারপর সব ঠিক হয়ে যায়

 অভিনেত্রী না হলে কি হতে ?
মিমি- সত্যি বলতে একেবারে ভাবিনি


 ফিল্ম সিরিয়ালের মধ্যে কাজের ক্ষেত্রে কতটা পার্থক্য রয়েছে ?
মিমি- বিশাল পার্থক্য রয়েছে ফিল্মের ক্ষেত্রে যতদিন শুট করছ ততদিনই চাপ থাকে তারপর চাপটা কমে যায় রিল্যাক্স করার সময় থাকে আর সিরিয়ালের ক্ষেত্রে ১৬-১৭ ঘন্টা টানা কাজ করে যেতে হয় ওটা খুব একঘেয়ে লাগে ৩০ দিন ধরে ওরকম করে যেতে হয় ফিল্মের ক্ষেত্রে চাপটা বেশি থাকে ঠিকই , কিন্তু কাজের সময়টা কম থাকে 

 কেরিয়ারের শুরুতে ঋতুপর্ণ ঘোষ, কৌশিক গাঙ্গুলী, রাজ চক্রবর্তীর মতো পরিচালকের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়েছ, এরজন্য নিজেকে কতটা লাকি বলে ভাব ?
মিমি- অব্যশই এরজন্য নিজেকে লাকি ভাবি সেরা পরিচালকদের সঙ্গে কাজ করতে পেরেছি রবি জি , বিরসা দা, ঋতু দা , রানা দা , সুদেষ্ণা দি, রাজ সকলের সঙ্গে কাজ করেছি

 শুটিং না থাকলে কিভাবে সময় কাটাও ?
মিমি- শুটিং না থাকলে আমি ঘুমোই (অল্প হেসে) কিচ্ছু করিনা শুধু ঘুমোই আগের বছর দিন রাত শুট করেছি, নিজের জন্য সেভাবে সময় পাইনি একদমই ঘুমনোর সময় পাইনি খুব ধকল গেছে আর সেটা কাটানোর উপায় হল ঘুম আর ওয়ার্ক আউট

 প্রিয় অভিনেতা ?
মিমি- অমিতাভ বচ্চন সলমন খান

 প্রিয় অভিনেত্রী ?
মিমি- সুচিত্রা সেন, কঙ্কনা সেনশর্মা , রানী মুখার্জি, করিনা কাপুর

 দেব না জিত ?
মিমি- (অল্প ভেবে) দুজনেই

প্রিয় ফিল্ম ?
মিমি- এটা চেঞ্জ হতে থাকে

 তোমার ইন্সপিরেশন কে ?
মিমি- আমার মা যেকোনো দিন

প্রিয় বন্ধু ?
মিমি- প্রিয় বন্ধু স্কুলের এখন মুম্বইতে থাকে

তোমার জন্মদিন ?
মিমি- ১১ ফেব্রুয়ারী। 



 স্বপ্নের চরিত্র ?
মিমি- স্বপ্নের চরিত্র বলব না, তবে এমন কিছু পছন্দের চরিত্র আছে যেগুলো করতে চাইব শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী কোনো চরিত্র করতে চাইব এটা একটা বড় চ্যালেঞ্জ হবে আমার কাছে

 পুপের মতো চরিত্র আবার পেলে করবে ?
মিমি- নিশ্চয় করব

এখনো পর্যন্ত যেকজন অভিনেতার সঙ্গে কাজ করেছ, তাদের মধ্যে কার সঙ্গে কাজ বেশি কমফর্টেবল?
মিমি- সকলের সঙ্গেই

এখনো পর্যন্ত তোমার জীবনের সেরা মুহূর্ত ?
মিমি- সেরা মুহূর্ত এখনো সেরকম আসেনি

 খাদের পুনম চরিত্রটার সঙ্গে বাস্তবে মিমির কতটা মিল ?
মিমি- না একদমই নেই আমি অতটাও বোল্ড নই যে স্বামীকে ওরকমভাবে খিস্তি দেব তবে হ্যা বেশির ভাগ মেয়েরা এই চরিত্রটার সঙ্গে রিলেট করতে পেরেছে

 অভিনেত্রী হিসেবে নিজেকে কত নম্বর দেবে ?
মিমি- (হেসে) মাইনাস এক

 মাইনাস ? কেন?
মিমি(হেসে) আমার মনে হয় না আমি এখনো ভালো অভিনেত্রী হয়েছি

 এত ফ্যান ফলোয়িং কিরকম লাগে ? বিশেষ করে পুপে চরিত্রটা যেভাবে জনপ্রিয়তা পেয়েছে
মিমি- আমার দু'রকমের ফ্যান ফলোয়িং আছে একটা হল একদমই গানের ওপারের ফলোয়িং আর একটা হল মিমি চক্রবর্তী ফলোয়িং দু'ধরনের ফ্যান ফলোয়িং-এর জন্য আমি সত্যি নিজেকে লাকি মনে করি

নর্থ বেঙ্গলের একজন সাধারণ মেয়ে থেকে কলকাতার একজন ব্যস্ততম অভিনেত্রী এই জার্নিটা কিরকম ?
মিমি- চড়াই উতরাই ছিল তবে অনেক কিছু শিখেছি সবমিলিয়ে জার্নিটা ভালো ছিল


আপকামিং কি ফিল্ম করছ ?
মিমি- এখন আমি বেকার, কোন আপকামিং ফিল্ম নেই (হেসে)  জোকস এপার্ট কাট মুন্ডু ছবিটা সবে শেষ হল বাকিগুলো এখনি কিছু বলতে পারছি না যতক্ষণ না আমি নিজে নিশ্চিত হচ্ছি

কাট মুন্ডু কোন সময়ে রিলিজ করছে?
মিমি- এখনো ঠিক হয়নি সময় আছে